ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ নিস্প্রভ সাকিবের দল

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৬:৩৭

সাহস ডেস্ক

দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারেও হতাশ করলেন সাকিব আল হাসান। ব্যাটে-বলে কোনোটিতেই অবদান রাখতে পারেননি তিনি। এর আগে টানা দুই ম্যাচে ‘গোল্ডেন ডাক’ দিয়ে লিগ শুরু করেছিলেন সাকিব। তার পরের টানা দুই ম্যাচে ম্যাচসেরা হন এ বাঁহাতি অলরাউন্ডার। এতে কোয়ালিফায়ারে ওঠে তার দল। কিন্তু কোয়ালিফায়ারে দুই ম্যাচের একটিতেও ভালো করতে পারেননি সাকিব আল হাসান। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হলো তার দল গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে সাকিবের দল গায়ানাকে ৩৭ রানে হারিয়ে আসরের ফাইনালে উঠেছে তারই সাবেক দল জ্যামাইকা তালাওয়াহস। শনিবার (১ অক্টোবর) শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে জ্যামাইকার প্রতিপক্ষ বার্বাডোজ রয়্যালস।

টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নামা জ্যামাইকা তালাওয়াশের শামারা ব্রুকস খেলেছেন বিধ্বংসী মেজাজে। ৮ ছক্কা ও ৭ চারে ৫২ বলে ১০৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন ব্রুকস। শেষ দিকে ঝড় তোলেন ইমাদ ওয়াসিম। ১৫ বলে অপরাজিত ৪১ রান করেন তিনি। এতে ৪ উইকেট হারিয়ে ২২৬ রানের বড় সংগ্রহ পায় জ্যামাইকা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ১৮৯ রানে থেমে যায় গায়ানার ইনিংস।

বার্বাডোজ রয়্যালসের বিপক্ষে কোয়ালিফায়ারের প্রথম ম্যাচে বোলিংয়ে ২২ রানে ১ উইকেট নেন সাকিব। ব্যাটিংয়ে ২ বলে ১ রান করে আউট হন। কোয়ালিফায়ারের দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যাটে-বলে নিষ্প্রভ ছিলেন গায়ানার এই অলরাউন্ডার। ৩ ওভারে ৩০ রান দিলেও কোনো উইকেট পাননি সাকিব। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে এসে দেন ৬ রান। এরপর ১৫তম ওভারে তার হাতে বল তুলে দেন গায়ানা অধিনায়ক শিমরন হেটমায়ার। সে ওভারে মাত্র ৩ রান দিয়ে অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দেন সাকিব। কিন্তু ১৭তম ওভারে গিয়ে আর পারেননি। ব্রুকসের কাছে ৩ ছক্কাসহ হজম করেন ২১ রান। এরপর আর সাকিবকে বোলিংয়ে আনেননি হেটমায়ার।

এদিকে ব্যাটিংয়ে চারে নেমেছিলেন সাকিব। ষষ্ঠ ওভারে শাই হোপ আউট হওয়ার পর নামেন সাকিব। মাঝে এক ওভার পরই আউট হন। ক্রিস গ্রিনের করা অফ স্টাম্পের বাইরে ফুললেংথ বল স্লগ চালাতে গিয়ে স্টাম্পে টেনে আনেন সাকিব। সব মিলিয়ে এবারের সিপিএলে ৬ ম্যাচে ৯৪ রান করেছেন সাকিব, স্ট্রাইক রেট ১৪৪.৬১, ব্যাটিং গড় ১৫.৬৬। বোলিংয়ে নিয়েছেন ৭.১৭ ইকোনমিতে নিয়েছেন ৮ উইকেট।৬ বলে ৫ রান করে আউট হন। সব মিলিয়ে এবারের সিপিএলে ৬ ম্যাচে ৯৪ রান করেছেন সাকিব, স্ট্রাইক রেট ১৪৪.৬১, ব্যাটিং গড় ১৫.৬৬। বোলিংয়ে ৭.১৭ ইকোনমিতে নিয়েছেন ৮ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
জ্যামাইকা তালাওয়াস: ২২৬/৪ (২০ ওভার) লুইস ০, কিং ৬, ব্রুকস ১০৯*, পাওয়েল ৩৭, রেইফার ২২, ইমাদ ৪১*; শেফার্ড ২/৪৩, তাহির ১/৩৪, স্মিথ ১/৬৪।

গায়ানা অ্যামাজন: ১৮৯/৮ (২০ ওভার) স্টার্লিং ২, গুরবাজ ২২, হোপ ৩১, সাকিব ৫, পল ৫৬, হেটমায়ের ১৫, শেফার্ড ২, মতি ২২*, স্মিথ ২৪; ইমাদ ২/২৫, গ্রিন ২/৪০, আমির ১/১৬, গর্ডন ১/৩৯, অ্যালেন ১/৩৫।

ফল: জ্যামাইকা তালাওয়াস ৩৭ রানে জয়ী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?