এশিয়া কাপের আগে সব বদলে ফেলতে চাচ্ছি: বিসিবি সভাপতি

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০২২, ১৯:৪৬

সাহস ডেস্ক

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ শক্তিশালী না। দলের যে মানসিকতা তা দিয়ে খুব একটা ম্যাচ জেতা সম্ভব না। ফলে এই মানসিকতা রাতারাতি পরিবর্তন করতে হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমকে একথা বলেন বোর্ড সভাপতি।

সরকারি ছুটির দিন থাকায় মিরপুর স্টেডিয়ামে এসেছিলেন বিসিবি সভাপতি। তখন মাঠে সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং অনুশীলন করছিলেন মুশফিকুর রহিম। অনুশীলনে ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। অনুশীলন সেরে তখন ড্রেসিংরুমে সাকিব আল হাসান। বোর্ড প্রধান মাঠেই এই ক্রিকেটারদের সঙ্গে ছোট সভা করেন। সেখানে ছিলেন ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস ও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন।

পাপন বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে আমরা শক্তিশালী না। কি করা যায় এটা নিয়ে ভাবতে গিয়ে আমরা একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ তিনি বলেন, ‘এশিয়া কাপ কিন্তু বিশ্বকাপের পরেই (বড় আসর)। গত বিশ্বকাপে আমাদের পারফরম্যান্স খুবই খারাপ ছিল। হঠাৎ করে এখন এত তাড়াতাড়ি বের হতে পারব কিনা জানি না।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের মাথায় যদি চিন্তা ধারা থাকে আমরা উন্নতি করতে চাই। এই চিন্তা যদি এশিয়া কাপ থেকে শুরু না করি তাহলে বিশ্বকাপে গিয়ে আরও খারাপ অবস্থা হবে।’

মানসিকতা, চিন্তা ভাবনা বদলের কথা বলেছেন বোর্ড সভাপতি। সেটা কিভাবে তাও পরিষ্কার করেছেন তিনি, ‘টি-টোয়েন্টির মানসিকতা পুরোপুরি আলাদা করতে হবে যদি জিততে চাই। এখানে পাওয়ার হিটিংয়ের বিকল্প নাই। ১৩০/১৪০ করে হয়ত একটা ম্যাচ জিতে যেতে পারেন। এটা সব সময় হবে না। আমাদের ১৮০-২০০ করতে হবে।’

পাপন বলেন, ‘এখন আমাদের যে মাইন্ডসেট সেটা করার লক্ষণ আমরা দেখতে পাই না। সেজন্য কি করা যায় তা নিয়ে আলাপ করেছি।’ পাওয়ার হিটিংয়ের সমস্যা কাটাতে একজন বিশেষজ্ঞ কোচেরও দরকার অনুভব করছে বোর্ড। তবে বর্তমান ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স বোর্ড সভাপতির বাসায় গিয়ে তাকে আশ্বস্ত করেছেন এই দিকটা সামলাতে পারেন তিনিই, ‘আমরা একটা চিন্তা করেছিলাম পাওয়ার হিটিংয়ের জন্য বিশেষজ্ঞ কোচ আনব কিনা। তখন জেমি (সিডন্স) এসে বলল ও এই ব্যাপারে স্পেশালাইজড আছে। আমাদের মূল সমস্যা যেটা দেখি টি-টোয়েন্টিতে। আমাদের খেলোয়াড় কিন্তু আছে। সমস্যা হচ্ছে আমাদের মাইন্ডসেট বদল করতে হবে।’

বিসিবি সভাপতি জানান এশিয়া কাপে ভালো খেলার ব্যাপারে অধিনায়ক সাকিবকে আত্মবিশ্বাসী দেখেছেন তিনি। লিটন দাসের না থাকা, নুরুল হাসান সোহানকে পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তায় সেরা দল না থাকার আক্ষেপও ঝরেছে তার কন্ঠে। এমনকি টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নেওয়া, আড়াই বছর ধরে এই সংস্করণে না থাকা তামিম ইকবালের না থাকার কথাও টেনে এনেছেন তিনি। এশিয়া কাপের স্কোয়াডে ওপেনার রাখা হয়েছে কেবল দুজন। ফর্ম ও চোট সমস্যার কারণে এই জায়গায় নেই বাড়তি কেউ। স্কোয়াডে আছেন মাত্র এক টি-টোয়েন্টি খেলা পারভেজ হোসেন ইমন। আছেন এনামুল হক বিজয়। বিজয় লম্বা সময় পর দলে ফিরে প্রত্যাশাপূরণ করতে পারেননি এখনো। ৬ ম্যাচ খেলে স্রেফ ১৪.১৬ গড় ও ১০৬.২৫ স্ট্রাইকরেটে করেছেন ৮৫ রান। বোর্ড সভাপতি অবশ্য তাকে নিয়ে আশাবাদী। বললেন, ‘কপাল ভালো আমাদের এখন বিজয় আছে।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?