৪ বছরে ৫০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেটাররা

প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৫:৫২

সাহস ডেস্ক

ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নারীদের ক্রিকেটে ২০২২-২৫ চক্রের ফিউচার ট্যুর প্ল্যান (এফটিপি) দিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এই এফটিপিতে বাংলাদেশের মেয়েরা ৫০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে। এর মধ্যে রয়েছে ২৪টি ওয়ানডে ও ২৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। দুই ফরম্যাটে মোট ৫০ ম্যাচ খেললেও এই চক্রে বাংলাদেশের জন্য কোনো টেস্ট রাখা হয়নি।

আইসিসির ২২-২৫ চক্রে ১০টি দল মোট ৩০১টি ম্যাচ খেলবে। যেখানে রয়েছে ৪টি করে হোম আর অ্যাওয়ে সিরিজ। এই চার হোম-অ্যাওয়ে সিরিজের ভেতর রয়েছে ৭টি টেস্ট, ১৩৫টি ওয়ানডে ও ১৫৯টি টি-টোয়েন্টি। ৭টি টেস্ট খেলবে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও সাউথ আফ্রিকা। ঘরের মাঠে বাংলাদেশ চারটি সিরিজে লড়বে- ভারত, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। আর নিউজিল্যান্ড, সাউথ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে সিরিজ খেলবে টাইগ্রেসরা।

এফটিপির শুরুটা হবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষের সিরিজের মধ্য দিয়ে। ডিসেম্বরে তিনটি ওয়ানডে ও সমসংখ্যক টি-টোয়েন্টি খেলতে কিউইদের দেশে যাবে টাইগ্রেসরা। এরপর ২০২৩ সালের জুন-জুলাইয়ে ঘরের মাঠে ভারতকে আতিথেয়তা দেবে সালমা-রুমানারা। এই সিরিজে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলবে দুই দল। একই বছরের অক্টোবর-নভেম্বরে ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। এই সিরিজটিও তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টির। পাকিস্তান সিরিজ শেষে প্রোটিয়া মিশনে যাবে টাইগ্রেসরা। সেখানে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে দুই দল।

২০২৪ সালের মার্চে ঘরের মাঠে বাংলাদেশ আতিথ্য দেবে অজিদের। সেই সিরিজটি হবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টির। একই বছর ডিসেম্বরে ঘরের মাঠে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ দিয়ে এফটিপি শেষ হবে টাইগ্রেসদের।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?