বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ

সেঞ্চুরির পর পেশিতে টান পড়ে মাঠ ছাড়লেন তামিম

প্রকাশ : ১৭ মে ২০২২, ১৭:১৫

সাহস ডেস্ক

সেঞ্চুরিটা করেছিলেন সাবলীলভাবেই। কিন্তু দুইবার হাতের পেশিতে টান পড়ায় ম্যাচ থেকে অবসরে যেতে হয়েছে তামিম ইকবালকে। প্রথম ইনিংসের রমেশ মেন্ডিসের করা ৫৮তম ওভারে প্রথমবার পেশিতে টান পড়ে তামিমের। পড়ে চা পান বিরতির আগের ওভারে আরেকবার। দুবারই ব্যথার সঙ্গে লড়ে ব্যাটিং চালিয়ে যান তামিম। তবে বিরতিতে যাওয়ার পর আর ব্যাটিংয়ে নামেননি।

পেশিতে টান পড়ায় প্রচণ্ড ব্যথা পান তিনি, নেন প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের সহায়তা। এরপর কয়েকবারই বিরতি নিয়েছেন। পরে চা পান বিরবিতে গিয়ে আর নামেননি মাঠে। তামিম ‘রিটায়ার্ড হার্ট’ (আহত অবসর) হওয়ায় তার জায়গায় ব্যাটিংয়ে নেমেছেন লিটন দাস। বিষয়টি নিশ্চিত করে বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানিয়েছেন, ‘হাতে ক্র্যাম্প হওয়ায় তামিম ব্যাটিংয়ে নামতে পারছেন না। পরবর্তীকালে যদি উইকেট পড়ে আর তিনি সুস্থ বোধ করেন, তাহলে আবার ব্যাটিংয়ে নামবেন।’

মাঠ ছাড়ার আগে ২১৭ বলে ১৫টি চারে ১৩৩ রান করেন তামিম। ৬১ স্ট্রাইক রেটের ইনিংসজুড়ে ছিল দাপটের প্রতিচ্ছবি। তার ইনিংসে ভর করে বাংলাদেশ দল প্রথম ইনিংসে এখনো লড়াই করছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৭৯ ওভারে ৩ উইকেটে ২৩১ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

এর আগে আসিথা ফের্নান্ডোর বলে ফ্লিক করে স্কয়ার লেগে ঠেলে দিয়ে সেঞ্চুরি পূরণ করেন তামিম। এ নিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে নিজের দশম সেঞ্চুরি পেলেন দেশ সেরা বাঁহাতি এই ওপেনার। মধ্যাহ্ন বিরতির আগে তামিম ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। বিরতি থেকে ফিরে এসে তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছতে বেশি সময় নেননি তামিম।

মঙ্গলবার (১৭ মে) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে তৃতীয় দিনে ৩৫ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামেন তামিম। আগের দিনের কিছুটা আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে এদিন নিজের অর্ধশত স্পর্শ করেন দিনের পঞ্চম ওভারেই। অফ স্পিনার রমেশ মেন্ডিসকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৭৩ বলে ফিফটি পূরণ করেন।

৯৯ রানের মাথায় গিয়ে আসিথা ফের্নান্ডোর বলে ফ্লিক করে স্কয়ার লেগে ঠেলে দারুণ এক সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তামিম ইকবাল। ঠিক আগের বলেই পুল করে দারুণ একটি চার মেরে ৯৯ রানে পৌঁছেছিলেন তিনি। তখন শঙ্কা আগের দুই ইনিংসের স্মৃতি। পাল্লেকেলেতে গত বছর ৯০ ও ৯২ রানে আউট হয়ে সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেছিলেন তিনি। তবে এদিন ঠিকই পৌঁছেছেন তার কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায়। ১৬ ইনিংস পর ফের পেলেন এ রাজকীয় স্বাদ। এর আগে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে হ্যামিল্টনে কিইদের বিপক্ষে খেলেছিলেন ১২৬ রানের ইনিংস।

ক্যারিয়ারের এটা দশম টেস্ট সেঞ্চুরি তামিমের। সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ২৫তম। একই দিনে আরও একটি মাইলফলক স্পর্শ করার সুযোগ রয়েছে তার। ঢুকতে পারেন এ সংস্করণের পাঁচ হাজারি ক্লাবে। এদিন মাঠে নামার আগে পাঁচ হাজার রান থেকে ১৫২ রান দূরে ছিলেন তিনি। তামিমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে এদিন পাঁচ বছর পর ওপেনিংয়ে শতরানের জুটি দেখেছে বাংলাদেশ। সবমিলিয়ে ৬১ ইনিংস পর শতরানের ওপেনিং জুটি। এদিন ১৬২ রানের জুটি গড়েছেন তারা। এর আগে সবশেষ ২০১৭ সালের মার্চে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই ১১৮ রানের ওপেনিং জুটি গড়েছিলেন তামিম ও সৌম্য সরকার।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?