ম্যাচসেরা মদ্রিচ, শেষ ষোলোয় ক্রোয়েশি

প্রকাশ : ২৩ জুন ২০২১, ১২:৩২

সাহস ডেস্ক

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ ষোলোয় ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল ‘ডি’ গ্রুপের নিচের দুই দল ক্রোয়েশিয়া ও স্কটল্যান্ড। এই দুই দলেরই পয়েন্ট ছিল সমান পয়েন্ট ১। সমিকরণটা এমনই ছিল যে ড্র করলে দুই দলই বাদ। আর যারা জিতবে তারাই যাবে নকআউটে। এমন সমিকরণ মাথায় রেখেই দুর্দান্ত খেলেছেন লুকা মদ্রিচ। তার দারুন পারফর্মেন্সে স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে ইউরোর শেষ ষোলোয় পৌঁছে গেছে ক্রোয়েশিয়া।

মঙ্গলবার (২২ জুন) দিবাগত রাতে হ্যাম্পডেন পার্কে স্কটল্যান্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ক্রোয়েশিয়া। যার ফলে ‘ডি’ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে থেকেই নকআউট নিশ্চিত হয়েছে তাদের।

এই জয়ে ৩ ম্যাচে ১ জয় ১ ড্র ও ১ হারে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা দল হয়ে শেষ ষোলোতে উঠল ক্রোয়েশিয়া। ৩ ম্যাচে ২ জয় ১ ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ ষোলোয় উঠল ইংল্যান্ড। ৩ ম্যাচে ১ জয় ১ ড্র ও ১ হারে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের তৃতীয় দল হিসেবে শেষ ষোলোয় পা রাখল চেক প্রজাতন্ত্র। তিন ম্যাচে ১ পয়েন্ট পাওয়া স্কটল্যান্ড গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছে এবারের ইউরো থেকে।

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই স্কটল্যান্ডের রক্ষণ চেপে ধরে ক্রোয়েশিয়া। এর ফলও পেয়ে যায় তারাতারি। ম্যাচের ১৭ মিনিটে ডানপ্রান্ত থেকে আসা একটি ক্রসে হেড দিয়ে বল স্কটল্যান্ডের ডি-বক্সে রাখেন ইভান পেরিসিচ। বক্সের মধ্যে শুয়ে পড়ে বাঁ পায়ের দুর্দান্ত শটে তা জালে জড়ান নিকোলা ভ্লাসিচ।

তবে বিরতিতে যাওয়ার আগেই গোলটি শোধ করে স্কটিশরা। ম্যাচের ৪২ মিনিটে একটি প্রতি আক্রমণ থেকে বল পেয়ে যান ম্যাগ্রেগর। ক্রোয়েশিয়ার চারজন খেলোয়াড়ের মাঝ দিয়ে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে নিচু শটে বল জালে জড়ান তিনি। এতে সমতায় ফেরে স্কটল্যান্ড।

তার দুই মিনিট পরই এগিয়ে যেতে পারত স্কটিশরা। কিন্তু স্কটিশদের আরেকটি দুর্দান্ত আক্রমণ রুখে দেন ক্রোয়াট গোলকিপার লিভাকোভিচ। পরে সমতায় থেকে বিরতিতে যায় দুই দল।

বিরতি থেকে ফিরে এসেও ক্রোয়েটদের চাপে রাখে স্কটিশরা। ম্যাচের ৪৯ মিনিটে একটুর জন্য এগিয়ে যেতে পারত স্কটিশরা কিন্তু গোল হয়নি। পরে দ্বিতীয়র্ধের পনের মিনিটের মতো উড়তে থাকা স্কটিশদের মাটিতে নামালো মদরিচ। ম্যাচের ৬২ মিনিটে বক্সের বাইরে বল পেয়ে ডান পায়ের বাইরের পাশ দিয়ে নেওয়া দুর্দান্ত এক শটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন লুকা মদ্রিচ। যার সুবাদে ইউরো কাপে ক্রোয়েশিয়ার সবচেয়ে কম বয়সী ও সবচেয়ে বেশি বয়সী গোলদাতার রেকর্ডটি নিজের করে নেন ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক।

পরে ম্যাচের ৭৭ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন পেরিসিচ। মদরিচের নেওয়া কর্নার কিকে অসাধারণ এক হেডে বল জালে জড়ান তিনি। এরপর বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলে এই ৩-১ গোলের জয় নিয়ে ইরো চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে ক্রোয়েশিয়া।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?