ব্রাজিল থেকেও কোপা আমেরিকা বন্ধ করতে পারেন আদালত

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০২১, ১৫:৪২

সাহস ডেস্ক

শুরু থেকে আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়ায় হওয়ার কথা ছিল কোপা আমেরিকার। কিন্তু রাজনৈতিক অস্থিরতায় বাদ পড়ল কলম্বিয়া। ওদিকে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আর্জেন্টিনা থেকেও সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। পরে ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের এ টুর্নামেন্টের বিকল্প আয়োজক হিসেবে ব্রাজিলকে বেছে নিয়েছে লাতিন আমেরিকার ফুটবল সংস্থা। তাতেও ঝামেলার শেষ নেই।

করোনার সংক্রামণ ব্রাজিলেও। দেশটির করোনা পরিস্থিতি সামনে এনে ব্রাজিল জাতীয় দলের খেলোয়াড়েরা কোপায় অংশ নেবেন না, এমন কিছুই এত দিন শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে সে অবস্থান থেকে ব্রাজিলের খেলোয়াড়েরা সরে আসায় সে শঙ্কা কেটে গেছে। তবে নতুন করে কোপা আয়োজন নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের কারণে। করোনায় বিপর্যস্ত ব্রাজিলে যেন এ সময় কোনো কোপার মতো টুর্নামেন্ট আয়োজিত না হয়, সে ব্যাপারে একমত তাদের সর্বোচ্চ আদালত।

ব্রাজিলের খেলোয়াড়েরা জানিয়েছেন, কোপা আমেরিকা আয়োজন নিয়ে দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশন (কনমেবল) যেভাবে পরিস্থিতি সামলেছে, তাতে তারা ‘সন্তুষ্ট’ নয়। তবে ১০ দলের এই টুর্নামেন্টে ব্রাজিলের খেলোয়াড়েরা অংশ নেবেন।

এর আগে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল, ব্রাজিলে করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মধ্যে কোনো রকম আলোচনা ছাড়াই অপ্রত্যাশিতভাবে কোপা আমেরিকা আয়োজনের ভার অর্পণ করায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন খেলোয়াড়েরা। কিছু খেলোয়াড় তো কোপায় অংশ নিতেও নারাজ ছিলেন।

ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মানবিক ও পেশাদার কারণ থেকে কোপা আমেরিকা নিয়ে কনমেবল পরিস্থিতি যেভাবে সামলেছে, তাতে আমরা সন্তুষ্ট হতে পারিনি। সাম্প্রতিক ঘটনাগুলোর জন্য আমরা মনে করি, যথাযথ প্রক্রিয়া মেনে আয়োজনের সময় এটা নয়।’

খেলোয়াড়েরা জানিয়েছেন, কোপা আমেরিকা ব্রাজিলে আয়োজনের বিপক্ষে তাঁদের এই অবস্থান মোটেও রাজনৈতিক কোনো ইস্যু নয় এবং তাঁরা কখনোই টুর্নামেন্ট বয়কটের কথা ভাবেননি, ‘আমরা কোপা আমেরিকা আয়োজক সংস্থার বিপক্ষে কিন্তু কখনোই বলব না, ব্রাজিলের হয়ে খেলতে চাই না।’

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আজ ভোরে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় তুলে নেয় ব্রাজিল। এরপরই দলের পক্ষ থেকে এই বিবৃতি দেওয়া হয়। ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো কোপা আমেরিকা আয়োজন নিয়ে সবুজসংকেত দেওয়ায় অনেকেই অবাক হয়েছিলেন।

কারণ, ব্রাজিলে করোনার মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় পাঁচ লাখ। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে আর কোনো দেশে এই ভাইরাসে এত মানুষ মারা যাননি। ১৩ জুন ভেনেজুয়েলার মুখোমুখি হয়ে কোপা আমেরিকা অভিযান শুরু করবে ব্রাজিল। খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে চারটি শহরে।

তবে কোপা আমেরিকা মাঠে গড়ানো থেকে মাত্র পাঁচ দিন বাকি থাকলেও এ টুর্নামেন্ট ঘিরে সন্দেহ এখনো দূর হয়নি। কোপা আমেরিকা আয়োজন থামানোর বিষয়ে সম্মত হয়েছেন ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্ট। আমাগীকাল বৃহস্পতিবার এ নিয়ে নির্দেশ জারি করবেন আদালত।

প্রধান বিচারপতি লুইস ফাক্স বলেছেন, ‘ব্যতিক্রমী এই পরিস্থিতির মধ্যে তিনি অনলাইনে ১১ সদস্যের আদালত বসিয়ে বিষয়টির শুনানি অনুষ্ঠিত করবেন। আর এ বিষয় আদালতে উপস্থাপন করেছে ব্রাজিলের জাতীয় মেটালওয়ার্কার্স ইউনিয়ন, কংগ্রেসের বিরোধীদলীয় সদস্য হুলিও দেলগাদো এবং তাঁর দল ব্রাজিলিয়ান সোশ্যালিস্ট পার্টি (পিএসবি)।

ইউনিয়নের যুক্তি, কোপা আমেরিকা আয়োজনে ‘কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়বে’। কোপা আমেরিকা আয়োজনের বিরুদ্ধে ব্রাজিলের আদালতে আরও কিছু অভিযোগ এসেছে।

ডেলগাদো ও পিএসবির যুক্তি, কোপা আমেরিকা আয়োজন করে মানুষের ‘স্বাস্থ্য ও বাঁচার মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে’। এদিকে ব্রাজিলের অফিশিয়ালরা জানিয়েছেন, গ্যালারিতে দর্শক ছাড়াই কোপা আমেরিকা আয়োজন করা হবে।

প্রতি ৪৮ ঘণ্টায় সব কটি দলকে বাধ্যতামূলক কোভিড পরীক্ষা করাতে হবে। চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা থাকবে এবং ভাড়া করা বিমানে দলগুলোকে ম্যাচের ভেন্যুতে নেওয়া হবে। এদিকে ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গত সোমবার সব কটি দলের খেলোয়াড়, কোচ ও স্টাফদের কোভিড টিকাদান কর্মসূচি থেকে সরে আসার ঘোষণা দেয়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মার্সেলো কুইরোগা জানান, টিকা দিয়ে খেলোয়াড়দের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা নিশ্চিত করতে দেরি হয়ে গেছে এবং টিকা নেওয়ার পর সৃষ্ট পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তাদের ‘পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলতে পারে’। সূত্র: প্রথম আলো।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?