মেসির হাতেই বার্সেলোনার শিরোপা উৎসব

প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১৫:৩৮

ক্রীড়া ডেস্ক

গত মৌসুমে এই কোপা দেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বার্সেলোনাকে বিদায় জানিয়েছিল অ্যাথলেটিক বিলবাও। তবে চলতি মৌসুমে খুব ভালোভাবে সেই শোধটাই নিল কাতালানরা। গত রাতে কোপা দেল রে’র ফাইনালে মেসি জোড়া গোলে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারিয়ে শিরোপা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বার্সেলোনা। আর এটিই বার্সেলোনার চলতি মৌসুমের প্রথম ট্রফি। আর এটি নিয়ে নিয়ে কোপা দেল রে’র সব থেকে বেশি ট্রফি জিতেছে কাতালানরা। অন্যদিকে অ্যাথলেটিক বিলবাও জিতেছে ২৩ বার।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) দিবাগত রাতে সেভিয়ার লা কার্তুসা স্টেডিয়ামে বিলবাওকে ৪-০ গোলে হারিয়েছে রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যরা। জোড়ার গোল করেছেন লিও মেসি এবং একটি করে গোল করেছেন গ্রিজম্যান ও ডি ইয়ং।

জোড়া গোল করে এই ম্যাচে দুই রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি অধিনায়ক হিসেবে প্রথম কোপা দেল রে শিরোপাও নিজের করে নিয়েছেন মেসি। সবশেষে ২০১৮ সালে কোপা দেল রে শিরোপা জিতেছিল বার্সেলোনা। এরপর দলের অধিনায়কত্ব পান মেসি।

এর আগে চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পিএসজির কাছে হেরে আগেই বাদ পড়েছে বার্সেলোনা। গত সপ্তাহে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে লা লিগার শিরোপা স্বপ্নও কিছুটা কঠিন হয়ে পড়েছে। এছাড়া বছরের শুরুতে স্প্যানিশ কাপের ট্রফিও ছোঁয়া হয়নি। তাই কোপা দেল রের ফাইনালটা কোনো অংশে কম গুরুত্বপূর্ণ ছিল না কাতালান জায়ান্টদের কাছে। অবশেষে সেভিয়ার লা কার্তুসা মাঠে মৌসুমে প্রথম শিরোপা উৎসব করলেন মেসিরা।

এদিন মেসি ছিলেন দুর্দান্ত। উরন্ত পারফর্ম দেখিয়েছেন তিনি। করেছেন দুটি গোল। গোটা ম্যাচেই বিলবাওয়ের রক্ষণকে রেখেছেন ব্যস্ত। তবে তাদের সেরাটা দিয়েছেন পুরো ম্যাচের মাত্র ১২ মিনিটে। বিরতির পর ৬০ থেকে ৭২ মিনিট পর্যন্ত চারটা গোল হয়েছে বার্সেলোনার। ম্যাচের ৬০ মিনিটে গোল খড়া কাটান বার্সার ফরাসি ফরোয়ার্ড আতোয়ান গ্রিজমান। ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের পাসে বার্সাকে ১-০তে এগিয়ে দেন গ্রিজম্যান।

তার তিন মিনিট পরেই আবারো এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ম্যাচের ৬৩ মিনিটে জর্দি আলবার পাসে হেড দিয়ে দলকে এগিয়ে দেন বার্সার ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং। এর ৫ ও ৯ মিনিট পর জোড়া গোল করে দলের সহজ জয় নিশ্চিত করেন দলের অধিনায়ক লিও মেসি। মাচের ৬৮ মিনিটে ডি ইয়ংয়ের সাথে ওয়ান টু ওয়ান পাসে দারুন ফিনিসিংয়ে গোল করেন মেসি। তার তার ৪ মিনিট পরে আবারো গোল করেন বার্সা অধিনায়ক। ম্যাচের ৭২ মিনিটে জর্দি আলবার পাসে গোল করে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করে দলকে সহজ জয় এনে দেন আর্জেন্টাইন এই মহাতারকা।

সম্প্রতি ৩-৫-২ ছকে দলকে মাঠে নামিয়ে বেশ সাফল্য পেয়েছেন বার্সা কোচ রোনাল্ড কোমান। মৌসুমের একমাত্র ট্রফি জেতার সবচেয়ে বড় সুযোগের দিনে সে ছক থেকে বেরোতে চাইলেন না তিনি। ওই ৩-৫-২ ছকেই নামিয়ে শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত বার্সা। ম্যাচের ৫ মিনিটে সার্জিও বুটসকেতসের কাছ থেকে বল পেয়ে যান ডি-বক্সে থাকা মেসি। নিজে সুযোগ না পেয়ে দেন ডি ইয়ংয়ের কাছে। সেখান থেকে ইয়ং গোলে শট নিলে তা গোলপোষ্টে লেগে গোল বঞ্চিত হন তিনি।

ম্যাচের ১২ মিনিটে গোল করার সুযোগ পায় বিলবাও। উইঙ্গার অ্যালেক্স বেরেঙ্গেরের ফ্রি-কিকে পা ঠেকিয়ে আরেকটু হলে গোল দিয়ে দিচ্ছিলেন সেন্টারব্যাক ইনিগো মার্তিনেজ। যদিও শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৩৯ মিনিটে মেসিকে ডি-বক্সের একটু আগে অন্যায়ভাবে ফেলে দিয়ে হলুদ কার্ড দেখেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার দানি গার্সিয়া। সেখান থেকে পাওয়া ফ্রি-কিক থেকে যদিও মেসি কিছু করতে পারেননি। প্রথমার্ধের উল্লেখযোগ্য ঘটনা এগুলোই।

বিরতির পর আরো আক্রমণাত্মক খেলা শুরু করে বার্সাবাহিনী। ম্যাচের ৫২ মিনিটে গ্রিজমানের কাটব্যাক থেকে বক্সের বাইরে থেকে পেদ্রির নেওয়া ডান পায়ের জোরালো শট পড়িমরি করে আটকান সিমোন। এর একটু পরেই জর্দি আলবার মাপা ক্রস বক্সে পড়লে সেটা ক্লিয়ার করতে গিয়ে একটু গুবলেট পাকিয়ে ফেলেন বিলবাওর মার্তিনেজ। তাঁর শট সতীর্থ ইনিগো লেকুয়ের পিঠে লাগলে বল চলে আসে একদম সিমোনের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা বুসকেতসের কাছে। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে বুসকেতসের সে শটটাও ঠেকিয়ে দেন সিমোন। পরে ম্যাচের ৬০ থেকে ৭২ মিনিটের মধ্যে ৪টি গোল দিয়ে এ বছরের শিরোপার খরা কাটালো বার্সেলোনা।

এই নিয়ে ৩১ বার কোপা দেল রে জেতা হয়ে গেল বার্সেলোনার। স্পেনের ইতিহাসে এত বেশি কোপা দেল রে জয়ের রেকর্ড আর কারও নেই, রিয়াল মাদ্রিদেরও না। ২০১৭–১৮ মৌসুমের পর এই প্রথম কোপা দেল রে জিতল বার্সেলোনা। একইসঙ্গে কোম্যানের অধীনে প্রথম ট্রফিও পেলো দলটি।

অধিনায়ক হিসেবে কোপা দেল রে’র প্রথম ট্রফি জিতে সামাজাকি যোগাযোগ মাধ্যমে ক্যাপশন দিয়ে ছবি পোষ্ট করেছেন দলের মহা তারকা মেসি।
সাধারণত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি পোস্ট করলে কোনো ক্যাপশন দেন না মেসি। তবে এবার শিরোপা জেতার পর চারটি ছবি আপলোড করে মেসি লিখেছেন, ‘এটি একটি খুব কঠিন কাপ ছিল এবং এই আনন্দ আমাদের প্রাপ্য ছিল! চ্যাম্পিয়নস!’

এর আগে ম্যাচ শেষ হওয়ার পর বার্সা টিভিতে দেয়া সাক্ষাৎকারে মেসি বলেছেন, ‘আজকে খুব আনন্দের একটি দিন। এমন একটা দলের অধিনায়ক হতে পারা সবসময়ই বিশেষ অনুভূতি, যেখানে আমি সারাজীবন ধরে খেলছি। এই শিরোপাও বিশেষ। কারণ অনেক তরুণ খেলোয়াড়দের নিয়ে আমরা একটা পুনর্গঠন প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছি। দলটা বেড়ে উঠছে এবং লা লিগার জন্য লড়ছে।’

শিরোপা জিতে অনেক বেশি খুশি হলেও, দর্শকদের সামনে এটি উদযাপন করতে না পারায় খানিক হতাশাও রয়েছে মেসির। তিনি বলেন, ‘ভক্তদের সামনে ট্রফি জয় উদ্যাপন করতে পারছি না, ব্যাপারটা কষ্টের। কিছু করার নেই, এখন এভাবেই চলতে হবে আমাদের। খুবই হতাশার বিষয় এটা। কোপা দেল রে সবসময়ই একটা বিশেষ স্থান দখল করে থাকে, আমাদের ভক্তরাও এই ট্রফি জিতলে অনেক আনন্দ পায়।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?