ঈদ-উল-আযহা

টুং-টাং শব্দে মুখরিত কামারপাড়া

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০২২, ১২:৫০

ফয়েজুর রহমান রকি

 

ঈদুল আযহার বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। ইতঃমধ্যেই শুরু হয়েছে ঈদের নানান আয়োজন। পশু কোরবানি ও মাংস কাটার বিভিন্ন সরঞ্জাম চাপাতি, ছুরি, চাকু, দা, বটি বানাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন লক্ষ্মীপুরের কামার শিল্পীরা। পশু কোরবানির প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কিনতে এখন থেকেই মানুষ ঢু-মারছেন কামারের দোকানে। আবার কেউ কেউ পুরাতন সরঞ্জাম মেরামত অথবা শান দিয়ে নিচ্ছেন। কোরবানির ঈদ সামনে রেখে লোহা আর হাতুড়ির টুং টাং শব্দে এখন আকাশ-বাতাস মুখরিত। এ পেশার মানুষ সারাবছর কমবেশি লোহার কাজ করলেও কোরবানির ঈদে বৃদ্ধি পায় তাদের কর্ম ব্যস্ততা।

প্রয়োজনীয় উপকরণের অভাব, আর্থিক সংকটসহ নানা কারণে হারিয়ে যেতে বসেছে ঐতিহ্যবাহী এই শিল্প। কয়লা আর কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায় লাভের পরিমাণ কমেছে বলেও জানায় কর্মকার শিল্পীরা। অধুনিক যন্ত্রপাতির প্রভাবে কামার শিল্পের দুর্দিন চললেও পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে জমে উঠে এ শিল্প। শান দেওয়া নতুন দা, বটি, ছুরি ও চাকু সাজিয়ে রাখা হয়েছে দোকানের সামনে। দোকানের জ্বলন্ত আগুনের তাপে শরীর থেকে ঝরছে অবিরাম ঘাম। চোখে মুখে প্রচণ্ড ক্লান্তির ছাপ। তবুও থেমে নেই তারা। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলছে তাদের কাজের ব্যস্ততা। ঈদের দিন সকাল পর্যন্ত চলবে এমন ব্যস্ততা।

ক্রেতা রেদওয়ান হোসাইন বলেন, কোরবানির গরুর মাংস কাটার জন্য নতুন চাপাতি কিনতে এসেছি। তৈরি করা তেমন ভালো চাপাতি পাচ্ছি না। তাই এক কেজি ওজনের ইস্পাত কিনে নতুন চাপাতি বানাতে দিলাম। চলতি বছর চাপাতির দাম অনেক বেশি মনে হচ্ছে। লক্ষ্মীপুর দক্ষিণ তেমুনীর কামার কৃষ্ণ কর্মকার বলেন, আগুনে তপ্ত লোহাকে হাঁতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে অস্ত্র বানানো কঠিন হলেও সেই তুলনায় পারিশ্রমিক কম। বর্তমানে ভালো মানের প্রতিটি দা তৈরিতে মজুরি নেওয়া হচ্ছে ৩০০-৯০০ টাকা পর্যন্ত। চাকু তৈরিতে ৫০-২০০, বড় ছুড়ি তৈরিতে ৫০০-৭০০, বটি তৈরিতে ৩০০ থেকে ৮০০ টাকা। অন্যদিকে তৈরি প্রতিটি দা বিক্রি হচ্ছে ৩০০, হাঁসুয়া ৩০০-৪৫০, ছোট ছুরি ৫০, বটি ২০০-৩০০, কাটারি ৫০- ২৫০ টাকা করে এবং কুড়াল বিক্রি হচ্ছে ৬০০-১০০০ টাকায়। সারাদিন কঠোর পরিশ্রম করলেও কাঁচামালের দাম বৃদ্ধির জন্য লাভাংশ কমে যাওয়ায় তাদের চোখে মুখে নেই কোন উচ্ছাস, নেই প্রাণভরা হাসি। তারপরও আসন্ন কোরবানির ঈদ উপলক্ষে অতিরিক্ত বিক্রীর আশায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কামার শিল্পীরা।

সাহস২৪.কম/এসটি/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?