বাংলাদেশে অর্থনৈতিক সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস নর্ডিক দেশগুলোর

প্রকাশ : ২৩ মার্চ ২০২২, ১৬:৫০

সাহস ডেস্ক

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে তাদের সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিয়েছে তিন নর্ডিক দেশ (ডেনমার্ক, নরওয়ে ও সুইডেন)।

বুধবার (২৩ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনিশ রাষ্ট্রদূত উইনি ইস্ট্রুপ পিটারসেন,নরওয়েজিয়ান রাষ্ট্রদূত এসপেন রিক্টর-সভেনডসেন এবং সুইডিশ রাষ্ট্রদূত অ্যালেক্স বার্গ ফন লিন্ডে এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ ও নর্ডিক দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিন কূটনীতিক যৌথভাবে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

বাংলাদেশ ও তিন নর্ডিক দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে রাষ্ট্রদূতরা প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান। তারা বলেন, স্বাধীনতার পরপরই তাদের দেশগুলো ১৯৭২ সালে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছিল। তারা বাংলাদেশের অগ্রগতি, বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর পদাঙ্ক অনুসরণ করে বাংলাদেশের অর্জিত সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন।

রাষ্ট্রদূতেরা ভূমিহীন ও গৃহহীনদের বাড়ি দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এসময় শেখ হাসিনা বলেন, বাড়ি দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সমর্থন এবং যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠনে সহায়তার জন্য তিন নর্ডিক দেশের অসামান্য ভূমিকার কথা স্মরণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নর্ডিক দেশগুলো গত ৫০ বছরে আমাদের উন্নয়ন, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ঘনিষ্ঠ অংশীদার হয়ে আছে। কৌশলগতভাবে সম্পর্ক উন্নত করতে দুই পক্ষ থেকেই সহযোগিতার নতুন ক্ষেত্রগুলো অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, তার সরকারের মূল লক্ষ্য গ্রামকেন্দ্রিক উন্নয়ন করা এবং দেশের সবার জন্য উন্নয়নের সুফল নিশ্চিত করা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর কীভাবে গণতন্ত্রকে নস্যাৎ করা হয়েছিল সে সম্পর্কে তিনি তাদের অবহিত করেন।

নরওয়ের রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান কারণ ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে ক্ষমতাসীন সময়ে তার সরকার গ্রামীণফোনকে বাংলাদেশে কাজ করার অনুমতি দিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি তখন টেলিযোগাযোগ খাতকে বেসরকারি খাতের জন্য উন্মুক্ত করেছিলেন; সাধারণ মানুষ এখন এর সুফল পাচ্ছে।

বৈঠকে এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসও উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?