x

এইমাত্র

  •  করোনা প্রমাণ করেছে দুর্যোগ মোকাবিলায় আমরা কতটা শক্তিহীন: প্রধানমন্ত্রী
  •  করোনায় সারা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ৯১ হাজার ৯৯৭ জন
  •  করোনায় বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ৬৬ লাখের অধিক, সুস্থ হয়েছেন ৩২ লাখেরও বেশী
  •  ঢামেকের করোনা ইউনিটে ২ দিনে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু
  •  করোনাভাইরাসঃ বাংলাদেশে আরও ৩০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৮২৮ জনের

' আমাদের কদমতলা' গ্রুপের ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ

পাইকারী থেকেও কম মূল্যে পণ্য পাওয়া যায় যেখানে

প্রকাশ : ২৩ মে ২০২০, ১৭:৫৫

১০ টাকা কেজি চিচিংগা, ৮ টাকা কেজি ঢেড়স, ২ টাকা আটির পাটশাক ঠিক কয়বছর আগে কিনেছেন মনে করতে পারবেন? আপনি মনে করতে না পারলেও ঢাকাস্থ সবুজবাগ থানাধীন কদমতলা এলাকার বাসিন্দাদের জন্য ২০২০ সালেই এই ব্যবস্থা করেছিল স্থানীয় কিছু উদ্যোমী তরুণ।

করোনাভাইরাসের কারণে যখন স্থবির প্রায় অর্থনীতি , নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্ত যখন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে হিমশিম খাচ্ছিল তখন স্থানীয় কিছু তরুণ ভাবলেন কিভাবে স্বল্পমূল্যে মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের চাহিদা মেটানো যায়। কদমতলা এলাকায় বসবাসকারীদের নিয়ে ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপ 'আমাদের কদমতলা' এর মাধ্যমে আহ্বান জানিয়ে স্থানীয় কয়েকজন উদ্যোমী তরুণ স্থানীয় কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল এন্ড কলেজ এর প্রাঙ্গণে শুরু করেন অভিনব এক বাজার।

উদ্যোক্তারা নিজেরাই আড়ত থেকে পণ্য কিনে এনে নাম মাত্র মূল্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কদমতলা এলাকার সর্বস্তরের মানুষের জন্য উন্মুক্ত করে দেন এই বাজার। একদিন পর পর সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত খোলা থাকতো এই অভিনব বাজার। পাইকারী থেকেও অনেক কম মূল্যে শাক সবজি ও বিভিন্ন দ্রব্যাদি ক্রয় করা যেত এখান থেকে। যাদের ক্রয় করার মতো সামর্থ্য নেই তাদের জন্য ছিল আলাদা কার্ডের ব্যবস্থা এবং তা ব্যবহার করে তারাও কেনাকাটা করতে পারতো এখান থেকে।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায় তারা এই উদ্যোগটিকে ব্যাপক সাধুবাদ জানিয়েছেন। তাদের মতে এরকম দুঃসময়ে এমন মানবিক উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়।

এই বাজারের উদ্যোক্তা ' আমাদের কদমতলা' গ্রুপের একজন জানান, ' আমাদের লক্ষ্য ছিলো সকল শ্রেণী পেশার মানুষ যাতে এই সুযোগ গ্রহণ করতে পারে। যেই টাকায় তারা আগে ১০ দিনের বাজার করতে পারতো একই টাকায় তারা যাতে এক মাসের খরচ চালিয়ে যেতে পারে আমরা মূলত সেই প্রচেষ্টাটাই করেছি। '

এছাড়াও এই বাজারের সাথে সংযুক্ত ' আমাদের কদমতলা' গ্রুপের সদস্যরা রোজা শুরু হওয়ার আগে স্থানীয় দরিদ্র্যদের মাঝে রোজার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য উপহার স্বরুপ পোঁছে দেন। ইদেও সেই সকল দরিদ্র্য পরিবার গুলোতে ইদ উপহার পোঁছে যাবে বলে তারা জানান।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত