x

এইমাত্র

  •  এসএসসি-সমমানে পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ
  •  করোনায় সারা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ৭১ হাজার ২৩ জন
  •  করোনায় বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ৬১ লাখের অধিক, সুস্থ হয়েছেন ২৭ লাখেরও বেশী
  •  করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে না আসা পর্যন্ত এইচএসসি পরীক্ষা নয়
  •  করোনাভাইরাসঃ বাংলাদেশে রেকর্ড ৪০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৫৪৫

১৪ দিন কোয়ারেইন্টাইনে না থাকলে যে শাস্তি হবে

প্রকাশ : ১৩ মার্চ ২০২০, ১৮:১০

সাহস ডেস্ক

যারা বিদেশ থেকে দেশে আসছেন, তারা অন্তত ১৪ দিন নিজের ঘরে থাকতে নির্দেশ দিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

এই ব্যপারে হুঁশিয়ারি দিয়ে আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেছেন, আমরা অনেক ক্ষেত্রে দেখছি, তারা (প্রবাসী) কোয়ারেইন্টাইনে থাকছেন না। অনুরোধ করেছি এতদিন। কিন্তু সরকারের সহানুভূতিশীল পদক্ষেপ তারা মানছেন না। তাই এবার সংক্রামক ব্যাধি আইন প্রয়োগ করতে পারি।

আইনটিতে বলা হচ্ছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের কোনো কাজে যদি কেউ বাধা দেন বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেন, অথবা কেউ যদি তাদের নির্দেশ না মানেন, তাহলে সেটি অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। আর এই অপরাধের শাস্তি তিন মাসের জেল, বা অনূর্ধ্ব ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কিংবা উভয় দণ্ড হতে পারে।

অন্যদিকে, সঠিক তথ্য থাকার পরও যদি কেউ সেটি গোপন করেন বা ইচ্ছা করে মিথ্যা ও ভুল তথ্য দেন- সেটিও অপরাধের মধ্যে পড়বে। এক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির দুই মাসের জেল বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ড হতে পারে।

শুক্রবার (১৩ মার্চ) সকালে রাজধানীর মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান।

এদিকে 'সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮' প্রয়োগের ঘোষণা দিয়ে একটি গণবিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এই গণবিজ্ঞপ্তি জারির কারণ হিসেবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলেছে, বিদেশ থেকে আসা অনেক প্রবাসী এবং তাদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিরা কোয়ারেন্টিনের শর্ত ঠিকভাবে পালন করছেন না এবং তারা অনেকের সংস্পর্শেও যাচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

আজ সকালের সংবাদ সন্মেলনে সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ অনুসা‌রে আক্রান্ত যেকোনো রোগীর ২৪ ঘণ্টার ব্যবধা‌নে দুবার নমুনা পরীক্ষার ফলাফ‌লে ভাইরা‌সের উপ‌স্থি‌তি নে‌গে‌টিভ পাওয়া গে‌লে ক‌রোনামুক্ত ঘোষণা করা যায়। সে বি‌বেচনায় দুজন রোগী‌কে ক‌রোনামুক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। আক্রান্ত আরেক রোগীর একবার নে‌গে‌টিভ এসেছে, আরেকবার নে‌গে‌টিভ পাওয়া গে‌লে তা‌কেও ক‌রোনামুক্ত ঘোষণা করা হ‌বে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত